কুরবানীর মাহাত্ম্য সংক্রান্ত প্রচলিত কতিপয় অচল হাদীস
  • কুরবানীর জানোয়ার কিয়ামতের দিন তার শিং ও পশম এবং খুরসহ অবশ্যই হাজির হবে---।[1]
  • কুরবানী তোমাদের পিতা ইবরাহীমের সুন্নত। তার প্রত্যেকটি লোমের পরিবর্তে রয়েছে একটি করে নেকী।[2]
  • কুরবানীর প্রথম বিন্দু রক্তের সাথে পূর্বেকার সমস্ত গোনাহ মাফ হয়ে যায়। পশুটিকে তার রক্ত ও গোশতসহ দাঁড়িপাল্লাতে ৭০ গুণ ভারী করে দেওয়া হবে।[3]
  • ভালো মনে সওয়াবের উদ্দেশ্যে কুরবানী করলে তা জাহান্নাম থেকে পর্দার মত হবে[4]
  • তোমরা তোমাদের কুরবানীকে মোটা-তাজা কর। কারণ তা তোমাদের পুলসিরাত পারের সওয়ারী।[5]
[1] (যয়ীফ, যয়ীফ তারগীব ৬৭১নং)

[2] (হাদীসটি জাল, যয়ীফ তারগীব ৬৭২নং)

[3] (হাদীসটি জাল, যয়ীফ তারগীব ৬৭৪-৬৭৫নং)

[4] (হাদীসটি জাল, যয়ীফ তারগীব ৬৭৭নং)

[5] (অতি দুর্বল, সিলসিলাহ যয়ীফাহ ১২৫৫নং)